রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:২১ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি :
Welcome To Our Website...

এক দিনে সড়কে ঝরে গেল ১৬ প্রাণ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৫ মে, ২০২২
  • ২৯৪ বার পঠিত

সড়ক দুর্ঘটনায় দেশের সাত জেলায় ১৬ জন নিহত হয়েছেন। বুধবার (৪ মে) সকাল থেকে রাত পর্যন্ত এসব দুর্ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে রংপুরে পাঁচজন, পঞ্চগড়ে তিনজন, কুষ্টিয়ায় দুইজন, যশোরে দুইজন, পাবনায় একজন ও মাদারীপুরে তিনজন নিহত হয়েছেন।

রংপুর 

রংপুর সদরের পাগলাপীরে মাইক্রোবাসের সঙ্গে থ্রি-হুইলার মাহিন্দ্রার মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত চারজন। বুধবার (৪ মে) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার পাগলাপীর সলেয়ালা বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

রংপুর সদর কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহত ৫ জনের মধ্যে চারজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- তারাগঞ্জ উপজেলার হাড়িয়ারকুঠি খাড়ুয়াবাধা গ্রামের আমজাদ হোসেন (৫০), দোহাজারী ছুটহাজীপুর গ্রামের মাহিন্দ্রাচালক ছেয়াদুল ইসলাম (৩৭) ও গঙ্গাচড়ার বেতগাড়ি গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম (৪৫) ও তার স্ত্রী নাজমা বেগম (৩৫)। অন্য একজনের নাম-পরিচয় এখনো জানা যায়নি। নিহতদের মরদেহ তারাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ বিষয়ে তারাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব মোর্শেদ জানান, নিহতদের মধ্যে দুইজনের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে। আহতদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

মাদারীপুর

মাদারীপুরের রাজৈরে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় ব্যাটারিচালিত ভ্যানের তিন যাত্রী নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও দুইজন। বুধবার (৪ মে) রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের সানেরপাড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, রাতে একটি ভ্যানে চড়ে চার যাত্রী রাজৈর উপজেলার ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের বাবনাতলা এলাকা দিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় বরিশাল থেকে আসা একটি যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ভ্যানটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই ভ্যানের যাত্রী আমির শেখ নিহত হন। আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়ার পথে প্রান্ত দফাদার নামে একজনসহ দুইজন মারা যান। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাউলাউ মারমা জানান, রাজৈর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পঞ্চগড়

পঞ্চগড়ে দুই মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। বুধবার বিকেলে সদর উপজেলার অমরখানা ইউনিয়নের মডেলহাট এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- সদর উপজেলার হাফিজাবাদ ইউনিয়নের খালপাড়া জিয়াবাড়ি এলাকার আব্বাস আলীর ছেলে আবু বক্কর সিদ্দীক (১৬), তারেক বিল্লালের ছেলে শিশির (১৮) এবং পয়কাম ইসলামের ছেলে নতুন ইসলাম (১৮)।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বিকেলে সিদ্দীক, নতুন ও শিশির মোটরসাইকেলযোগে মডেলহাট বাজার থেকে মহারাজা দিঘিতে বেড়াতে যাচ্ছিল। এ সময় অপর দিক থেকে আসা আরেকটি মোটরসাইকেলের সঙ্গে তাদের মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে দুই মোটরসাইকেলের ৫ জন আহত হয়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. রুকসানা ৩ জনকে মৃত ঘোষণা করেন।

কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়ার খোকসায় পিকআপভ্যানের চাপায় দুই ভাই নিহত হয়েছেন। বুধবার দুপুর ২টার দিকে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী সড়কের শিমুলিয়া ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

খোকসা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন- পাংশা উপজেলার কলিমহর গ্রামের কৃষক রেজাউল ইসলামের ছেলে ফিরোজ মন্ডল (৪৫) ও তার ভাই সামিরুল (১০)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পাংশা থেকে ছেড়ে আসা একটি থ্রি-হুইলার যাত্রী নিয়ে কুষ্টিয়ার দিকে যাত্রা করে। খোকসার পাইকপাড়ায় এসে পৌঁছালে সামনে থেকে আসা একটি পিকআপ ভ্যান থ্রি-হুইলারটিকে চাপা দেয়। দুর্ঘটনার পর পিকআপ ভ্যানের চালক ও থ্রি-হুইলারের চালকদুজনই পালিয়ে যান। ঘটনাস্থলেই সামিরুল ও তার বড় ভাই ফিরোজ নিহত হন। নিহতরা মাছপাড়া বাসস্ট্যান্ড থেকে থ্রি-হুইলারে উঠেছিলেন।

থ্রি-হুইলারের অপর যাত্রী ইতি খাতুন গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ইতির দুই শিশু সন্তান হুমাইরা ও আনাচ গাড়িতে থাকলেও তাদের কোনো ক্ষতি হয়নি। এ ঘটনায় সুরুজ আলী মন্ডল, রিমা ও মামুনুর নামে আরও তিনজন আহত হয়েছেন।

খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. রমা বলেন, একজন নারী রোগীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

যশোর

যশোরের চৌগাছার ইলিশমারী ও ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার মদদুইনপুর এলাকার মাঝামাঝি একটি জায়গায় রাস্তার পাশের বিদ্যুতের খুঁটিতে মোটরসাইকেলের ধাক্কা লেগে শাহিনুর রহমান (২২) ও সাগর হোসেন (১৮) নামে দুই বন্ধুর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত শাহিনুর যশোরের চৌগাছা উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের হাজরাখানা গ্রামের সাহেব আলীর ছেলে। আর সাগর একই এলাকার বাবর আলীর ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, তারা অতিরিক্ত গতিতে মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন। এ সময় তাদের কারও মাথায় হেলমেট ছিল না।

উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহিনুর রহমান বলেন, শাহিনুর ও সাগর চৌগাছা-বিদ্যাধরপুর সড়ক ধরে একটি অ্যাপাচি আরটিআর মোটরসাইকেলে হাজরাখানা গ্রাম থেকে মহেশপুরের বিদ্যাধরপুরের দিকে যাচ্ছিলেন। পথে একটি বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ধাক্কা লাগলে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলের চালক শাহিনুরের মৃত্যু হয়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে মোটরসাইকেলের আরেক আরোহী সাগরেরও মৃত্যু হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. উত্তম কুমার বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই তাদের মৃত্যু হয়। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

পাবনা 

ঈদের দ্বিতীয় দিন নানার বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার পথে পাবনার সুজানগরে মাইক্রোবাস-মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে আবু তালহা তেহেমী (১২) নামে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় তার দুই ভাই আহত হয়েছে। তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার (৪ মে) দুপুরে উপজেলার সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের কুড়িপাড়া মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আবু তালহা রাইপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নাজিরগঞ্জ ইউনিয়নের হাটমালিফা গ্রামের হেলাল উদ্দিনের ছেলে। সে স্থানীয় মালিফা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

এ ঘটনায় আহত হয় তেহেমীর বড় ভাই মালিফা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী মো. তোহা এবং মোটরসাইকেল চালক তেহেমির চাচাতো ভাই এইচএসসি পরীক্ষার্থী মো. মামুন। তাদের দুজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

সুজানগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল হান্নান জানান, তিন ভাই একসঙ্গে আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছিল। দুর্ঘটনার কবলে পড়ে ঘটনাস্থলেই একজন মারা গেছে। আহত দুইজনকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। ঘটনার পরপর সটকে পড়ায় ঘাতক মাইক্রোবাসটি জব্দ করা সম্ভব হয়নি। তবে আমাদের চেষ্টা চলছে, এটি চিহ্নিত করে দায়ী চালককে গ্রেপ্তার করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Deshjog TV