মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:৫০ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি :
Welcome To Our Website...

চট্টগ্রামে জ্যামে আটকে গেল ট্রেন (ভিডিও)

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২০ মার্চ, ২০২২
  • ২০৯ বার পঠিত

চট্টগ্রামে বেড়েছে যানজট। ঘণ্টার পর ঘণ্টা সড়কে আটকে থাকতে হয় যানবাহনকে। এবার সেই যানজটে আটকা পড়েছে ট্রেনও। বন্দর এলাকার সল্টগোলা ক্রসিং মোড়ে বুধবার ঘটেছে এমন ঘটনা। রিকশা, লরি, বাস, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মোটরসাইকেলের মাঝখানে ট্রেন আটকা যানজটে। চার লেনের সড়কজুড়ে কেবলই স্থবিরতা। এমন যানজটে পড়ে আধ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে হয়েছে একটি ট্রেনকে।

চট্টগ্রাম বন্দরের এনসিটি ইয়ার্ড থেকে কনটেইনার নিয়ে বের হওয়ার পথে গত বুধবার (১৬ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এই যানজটে আটকা পড়ে একটি ট্রেন। আর সেই দৃশ্য ইতোমধ্যে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। সল্টগোলা ক্রসিং মোড়ে এমন ঘটনা নতুন নয়। হরহামেশাই এমন ঘটনা দেখা যায়।

চট্টগ্রাম মহানগরীর ব্যস্ততম মোড়গুলোর মধ্যে সল্টগোলা ক্রসিং অন্যতম। বন্দরের এনসিটি গেট-২, সিসিটি গেট-২ ও ৫ নম্বর জেটির অবস্থানও এর পাশে। মোড়টি পেরিয়ে পশ্চিমে চট্টগ্রাম ইপিজেড। চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমানবন্দরও এই সড়কে। ফলে মোড় দিয়ে বন্দরের পণ্যবাহী গাড়ির পাশাপাশি অন্যান্য যানবাহনেরও চাপ থাকে নিয়মিত।

বন্দরের পণ্যবাহী গাড়িগুলোর দীর্ঘ সারির কারণেই এমন যানজট তৈরি হয় বলে জানিয়েছে পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। বিশেষ করে প্রতিদিন বিকেলে অফিস ছুটির পর ওই সড়কে যানজটের ব্যাপ্তি বাড়ে। সপ্তাহের রোববার ও বৃহস্পতিবার এই যানজট তীব্র আকার ধারণ করে।

নগর পুলিশের ট্রাফিক (বন্দর) বিভাগের সহকারী কমিশনার মিজানুর রহমান সংবাদমাধ্যমকে বলেন, এই মোড়ে যানজটে ট্রেন আটকে পড়ার ঘটনা প্রায়ই হয়। এখানে লেভেল ক্রসিং বার নেই। তবে গেটম্যান থাকেন নিয়মিত। মোড়ে ট্রেনের গতিও থাকে একেবারে কম। ফলে কোনো দুর্ঘটনা ঘটে না। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় সিসিটি ইয়ার্ড থেকে কনটেইনারবাহী ট্রেনটি বের হওয়ার মুখে হয়ে যানজটে আটকা পড়ে। ট্রেন আসার আগে বারবার সিগন্যাল দিলেও রেললাইনের ওপর আগে থেকে যানজটে আটকে ছিল গাড়ির বহর। ফলে ট্রেন চলাচলের উপায় ছিল না।

তিনি আরও বলেন, ‘বন্দরে প্রবেশের আগে গেট পাসের জন্য পণ্যবাহী গাড়িগুলো সড়কে দাঁড়িয়ে থাকে। ফলে ইপিজেডে অফিস ছুটির পর যানজট বাড়তে থাকে। যানজট নিয়ন্ত্রণে এখানে আমাদের প্রায়ই হিমশিম খেতে হয়। এদিন সন্ধ্যার ঘটনায় ট্রেনটি প্রায় আধ ঘণ্টা যানজটে আটকা পড়ে থাকে।

বন্দরের সচিব ওমর ফারুক বলেন, টানা তিনদিন ছুটি শুরু হওয়ার কারণে বন্দরে পণ্যবাহী গাড়ির চাপ বেশি ছিল। আর ওই সড়কে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজের কারণে যানজট তীব্র আকার ধারণ করে।

রেলওয়ের একাধিক লোকো মাস্টার জানিয়েছেন, যানজটের কারণে সল্টগোলা ক্রসিংয়ে প্রায়ই ট্রেন আটকে থাকে। এটি আমাদের কাছে সাধারণ ঘটনা। তবে ট্রেনের গতি একেবারেই কম থাকে। ফলে এ পর্যন্ত কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি। যদিও যানজটে পড়ে বিপাকে পড়তে হয়। তা ট্রেনের শিডিউলেও প্রভাব ফেলে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Deshjog TV