রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০১:৩০ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি :
Welcome To Our Website...

দলের সম্মেলনে একজন কাউন্সিলরও যদি না চান আমি থাকবো না: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর, ২০২২
  • ৯৭ বার পঠিত

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী দল আওয়ামী লীগের আসন্ন জাতীয় সম্মেলনে একজন কাউন্সিলরও তাকে নেতৃত্বে না চাইলে তিনি বিদায় নিতে প্রস্তুত আছে বলে জানিয়েছেন দলটির সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার বিকাল চারটায় গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে বঙ্গবন্ধুকন্যা একথা বলেন। যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে ১৮ দিনের সফরের অভিজ্ঞতা জানাতে এই সংবাদ সম্মেলনে হাজির হয়েছেন সরকারপ্রধান।

ডিসেম্বরে ক্ষমতাসীন দলের আসন্ন জাতীয় সম্মেলনে কোনো চমক থাকবে কি না সিংবাদ সম্মেলনে প্রথম প্রশ্ন ছিল এক সাংবাদিকের। জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগের একজন কাউন্সিলর যখন বলবে আমাকে চায় না, আমি থাকব না। আমি চাই নতুন নেতৃত্ব আসুক। বিদায় নেওয়ার জন্য আমি প্রস্তুত।’

সংবাদ সম্মেলনে সরকারের একাধিক মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতারাও উপস্থিত আছেন। রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম এবং বেসরকারি টেলিভিশনগুলো এ সংবাদ সম্মেলন সরাসরি সম্প্রচার করেছে।

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্যে অংশ নিতে ১৫ সেপ্টেম্বর লন্ডনে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখান থেকে জাতিসংঘের ৭৭তম সাধারণ অধিবেশনে অংশ নিতে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে যান সরকারপ্রধান।

জাতিসংঘের অধিবেশন শেষে ওয়াশিংটন ডিসিতে কয়েক দিন কাটিয়ে মঙ্গলবার দেশে ফেরেন প্রধানমন্ত্রী। এর এক দিন পর সংবাদ সম্মেলনে এলেন সরকারপ্রধান।

যেকোনো দেশে রাষ্ট্রীয় সফর শেষে দেশে ফিরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংবাদ সম্মেলন করে থাকেন। এর আগে সবশেষ ১৪ সেপ্টেম্বর ভারত সফরের অভিজ্ঞতা জানাতে সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন সরকারপ্রধান।

প্রধানমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে লিখিত বক্তব্য দেন। জাতিসংঘে তার ভাষণের বিষয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘রোহিঙ্গারা যাতে সম্মানের সঙ্গে ও নিরাপদে তাদের নিজ দেশে ফিরতে পারে সেই লক্ষ্যে বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক, ত্রিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। কিন্তু মিয়ানমার সরকারের রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাবে রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসন এখন পর্যন্ত সম্ভব হয়নি।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরিতে মিয়ানমারের ওপর চাপ সৃষ্টি এবং রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন ত্বরান্বিত করার জন্য জাতিসংঘকে কার্যকর ও জোরালো ভূমিকা রাখার জন্য আহ্বান জানিয়েছি।’

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Deshjog TV