রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০১:৩৪ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি :
Welcome To Our Website...

ভর্তি না হয়েও মেডিকেলের ছাত্র, ক্লাস করেছেন নিয়মিত !

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২১ নভেম্বর, ২০২২
  • ৯৪ বার পঠিত

ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ না হয়েও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ছাত্র পরিচয়ে নিয়মিত ক্লাসে ও ক্যাম্পাসে তার চলাফেরা। মেডিকেলের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রোগ্রামে অংশ নিতেন নিয়মিত। পরতেন কলেজের মনোগ্রামযুক্ত টি-শার্ট ও চিকিৎসকদের এপ্রোন, সঙ্গে রাখতেন শিক্ষার্থীর আইডি কার্ডও। কিন্তু কখনো কোন পরীক্ষায় অংশ নেন নি তিনি। তবে শেষ রক্ষা হয়নি তার। গত শনিবার চকবাজার থানা পুলিশের জালে ধরা পড়েছে মেডিকেলের ‘ভুয়া ছাত্র’ বেশধারী এই প্রতারক। বিশ বছর বয়সী এই প্রতারকের নাম মোঃ সাইফুল ইসলাম । তিনি কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার ঘাবরাং ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের হোসেন আহম্মদ সওদাগর বাড়ীর মো. মফজল আহাম্মদের ছেলে। বর্তমানে তিনি চকবাজারের বাদুরতলা এলাকায় বসবাস করছেন। ‘ভুয়া ছাত্র’ সাইফুলের জালিয়াতির ঘটনায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে মোহাম্মদ ইউসুফ চকবাজার থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ জানায়, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ছাত্র হিসেবে ভুয়া আইডি কার্ড বানিয়ে প্রতারক সাইফুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে ক্যাম্পাসে যাতায়াত করে। তার বিভিন্ন কর্মকান্ডে কলেজ শিক্ষার্থীদের সন্দেহ হলে শনিবার রাতে চকবাজার এলাকায় তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে তারা। পরে তিনি কোন সদুত্তর দিতে না পারায় চমেক কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে শিক্ষার্থীরা। এসময় ঘটনাস্থলে পুলিশও হাজির হয়।পরে সাইফুলকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি সব দোষ স্বীকার করে নেন।এসময় তার কাছ থেকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি এন্ড ম্যাটস ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের নামে আলাদা দুটি আইডি কার্ড এবং চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের আইডি কার্ড তৈরীর একটি আবেদন পত্র উদ্ধার করা হয়। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের নামে তৈরী ভুয়া আইডি কার্ডে লেখা রয়েছে, ব্যাচ নম্বর-৬৪, সেশন ২০১৯-২০, রোল নম্বর-৬৭, কোর্স এমবিবিএস,স্টুডেন্ট আইডি ৬৪৫৫০৭২ । এছাড়া চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি এন্ড ম্যাটস নামক প্রতিষ্ঠানের আইডি কার্ডে ২০১৮-১৯ সেশনের কথা উল্লেখ করে লেখা রয়েছে,কোর্স-ম্যাটস, স্টুডেন্ট নং- ১৫২।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাইফুল পুলিশকে জানিয়েছে, তিনি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি এন্ড ম্যাটস নামক প্রতিষ্ঠানের ২০১৮-১৯ সেশনের ছাত্র হয়েও গত ৩ মাস ধরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে নিয়মিত ক্লাস করেছেন। এছাড়া নগরীর বিভিন্ন স্থানে মেডিকেলের ছাত্র পরিচয়ে টিউশন করার মাধ্যমে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদেরও ঠকিয়েছেন তিনি। মূলত মেডিকেলে না পড়েও ভালো ছাত্র হিসেবে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা গ্রহণ করার লক্ষ্যে তিনি এ প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চকবাজার থানার এস আই আরাফাত হোসেন জানান, ওসি স্যারের নির্দেশে দ্রুততার সাথে সাইফুলকে আটক করে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে প্রতারণার সকল আলামত জব্দ করা হয়েছে। সে আর কোন ধরণের প্রতারণার সাথে জড়িত আছে কিনা সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে কলেজ কর্তৃপক্ষ মামলা দায়ের করেছে। তাকে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Deshjog TV