রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৪৯ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি :
Welcome To Our Website...

মায়ের সহায়তায় ১০ বছরের শিশুকে ধর্ষণ করত বখাটে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৭ মার্চ, ২০২২
  • ২৯৭ বার পঠিত

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে ১০ বছরের এক শিশুকন্যাকে ধর্ষণের দায়ে মো. ইব্রাহিম নামের এক বখাটে ও শিশুটির মাকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় এলাকাবাসী।

শনিবার (৫ মার্চ) শিশুটিকে আবারো ধর্ষণ করতে গেলে এলাকাবাসী ইব্রাহিমকে ধরে ফেলে। এছাড়া ধর্ষণে সহায়তার অভিযোগে শিশুর মা মাসুদা খাতুনকেও আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয় এলাকাবাসী।

এ ঘটনায় রোববার (৬ মার্চ) দুপুরে ভুক্তভোগী শিশুর ভাবী লাইলী বেগম বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।

জানা যায়, ডেকোরেশনের কর্মী মো. ইব্রাহিমের (৩২) সঙ্গে পরিচয় হয় ভাটিয়ারী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের হাসনাবাদ এলাকার আমজাদ আলী সেরাং বাড়ির ফাতেমা বেগমের ভাড়াটিয়া আবু জাকেরের স্ত্রী মাসুদা খাতুনের (৫০) সঙ্গে। ইব্রাহিম বাঁশবাড়িয়া ৩ নম্বর ওয়ার্ডের নতুনপাড়া গ্রামের মৃত ইলিয়াছের ছেলে। পরিচয় সূত্রে মাসুদাকে খালা ডেকে ইব্রাহিম প্রায়ই তার বাড়িতে রাতযাপন করতেন। সেইসঙ্গে মাসুদাকে টাকা-পয়সা দিতেন। রাতযাপনের সুযোগে মাসুদার ১০ বছর বয়সী শিশুকন্যাকে প্রায়ই ধর্ষণ করতেন ইব্রাহিম। একপর্যায়ে মেয়েটি রক্তক্ষরণজনিত কারণে অসুস্থ হয়ে পড়লে মাকে ধর্ষণের কথা জানায়। কিন্তু শিশুর মা মাসুদা উল্টো ভয়-ভীতি দেখিয়ে চুপ থাকতে বলে তাকে। এক পর্যায়ে কিছুদিন আগে মেয়েটি ধর্ষণের কথা তার ভাবী লাইলী বেগমসহ প্রতিবেশীদের জানায়।

এরপর প্রতিবেশীসহ লাইলী বেগম ইব্রাহিমকে ধরার অপেক্ষায় থাকেন। শনিবার (৫ মার্চ) গভীর রাতে মেয়েটির বাড়িতে রাতযাপনের সময় আবারো ধর্ষণ করতে গেলে এলাকাবাসী ইব্রাহিম ও মাসুদা খাতুনকে আটক করে পুলিশে দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাদের থানায় নিয়ে যায়।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মেয়েটির আপন মায়ের সহযোগিতায় তার শিশুকন্যাকে এক যুবক বারবার ধর্ষণ করে আসছিল। মর্মান্তিক এ ঘটনার বর্ণনা দিয়েছে ভুক্তভোগী মেয়েটি। সে জানিয়েছে ধর্ষণের এসব কথা বারবার মাকে জানালেও তার মা উল্টো তাকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে কাউকে না বলতে বলে। এতে করে মেয়েটি হতাশ হয়ে পড়ে। বারবার ধর্ষণের শিকার হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে এ ঘটনা ভাবী লায়লী বেগম জানায় মেয়েটি। লায়লী বেগম এলাকাবাসীর সহায়তায় ধর্ষক ও শিশুটির মাকে ধরে পুলিশে দেয়।

এ ঘটনায় লাইলী বেগম বাদি হয়ে শিশুটির মা মাসুদা খাতুন ও ইব্রাহিমের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। রোববার তাদের গ্রেপ্তার কোর্ট হাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Deshjog TV