বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ১১:১৩ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি :
Welcome To Our Website...
শিরোনাম :
পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সাবেক ছাত্র নেতা মিজানুর রহমান মাগুরাবাসিকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কাজী রফিকুল ইসলাম মাগুরাবাসিকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মাগুরা জেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক আলী আহম্মদ পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মাগুরা জেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক সাকিব পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন শরিয়ত উল্লাহ বঙ্গবন্ধু ল’টেম্পল কলেজের শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিল প্রাথমিক শিক্ষকদের অনলাইন বদলি আবেদন শুরু শনিবার চট্টগ্রামে ১০ জুয়াড়ি গ্রেফতার চট্টগ্রামে চোরাই সিএনজিসহ গ্রেপ্তার ২ চট্টগ্রামে চোলাই মদসহ গ্রেপ্তার ৪

লক্ষ্মীপুরে বৈদ্যুতিক মিস্ত্রিকে মারধরের অভিযোগ 

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ৬৮ বার পঠিত

লক্ষ্মীপুরের দত্তপাড়ায় ফয়েজ কাজী (২৫) নামে এক বৈদ্যুতিক মিস্ত্রিকে প্রকাশ্যে মারধরের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় মনির হোসেন রুবেল, টিটু, ইসমাইল ও মিজানসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে। এসময় ওই যুবকের সাথে থাকা নগদ টাকাও লুটে নেয়া তারা। পরে স্থানীয়রা এসে গুরুতর আহত ফয়েজকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। রবিবার সন্ধ্যায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ফয়েজ কাজী ও তার স্বজনরা মারধর ও টাকা লুটের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এর আগে সকালে সদর উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নের দত্তপাড়া বাজারে এঘটনা ঘটে।

আহত ফয়েজ কাজী ওই ইউনিয়নের আলা বক্স চকিদার বাড়ির শাহজাহান কাজীর ছেলে ও পেশায় ইলেকট্রিক মেস্ত্রী।

অভিযুক্ত মনির হোসেন রুবেল দত্তপাড়া বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি, ইসমাঈল সাবেক ইউপি সদস্য আজিজ মেম্বারের ছেলে, টিটু ও মিজান এরা সবাই দত্তপাড়া ইউনিয়নের বাসিন্দা এবং একাধিক মামলার আসামী।

অভিযুক্ত মনির হোসেন রুবেল ও ইসমাঈল বলেন, সকালে দত্তপাড়া বাজারে মন্দিরের সামনে গাঁজা খাওয়া ও খারাপ ছেলেদের সাথে চলার অভিযোগে ফয়েজ কাজীকে হালকা মারধর করা হলেও অপর অভিযুক্তরা লাঠি দিয়ে মেরেছে বলে দাবি তাদের।

আহত ফয়েজ কাজী ও হাসপাতালে অবস্থানরত তার স্বজনরা জানান, শবে বরাত উপলক্ষে সকালে গরুর মাংস কিনতে বাজারে যান ফয়েজ। এসময় বাজার কমিটির সভাপতি মনির তাকে ডাক দিলে সে মন্দিরের সামনে যায়। কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই মনির ও আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা ইসমাঈল, টিটু, মিজান ও মুখোশধারী এক যুবক ফয়েজকে লোহার পাইপে কাপড় বেধে মারধর শুরু করে। এসময় তার কাছে থাকা নগদ টাকাও লুটে নেয় অভিযুক্তরা। পরে স্থানীয় চিকিৎসক কামরুলকে ডেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয় তারা। এঘটনা কাউকে বললে মেরে ফেলারও হুমকির কথা জানান ফয়েজ । খবর পেয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ফয়েজকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছে নিয়ে যান। পরে দত্তপাড়া পুলিশ ফাঁড়িতে নিলে চিকিৎসার জন্য তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করাতে বলেন পুলিশ, জানায় আহতের স্বজনরা।

এদিকে সন্ধ্যায় ফয়েজের স্বজনরা থানায় অভিযোগ দিতে গেলে হামলায় অভিযুক্ত ও একাধিক মামলার আসামীরা এবার ফয়েজের স্বজনদের উপর চড়া হয়। এধরনের একটি ভিডিওতে বাজার কমিটির সভাপতি মনির হোসেন রুবেলকে থানা এলাকায় পুলিশের সামনে ফয়েজের স্বজনদের সাথে খারাপ ব্যবহার করতে দেখা যায।

দত্তপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এটিএম কামাল উদ্দিন বলেন, গাজা খেলে কিংবা কোন অপরাধ করলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আছে। কয়েকজন যুবক সকালে এক যুবককে বাজারে মারধরের খবর পেয়ে তাদেরকে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে।

দত্তপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বেলায়েত হোসেন বলেন, থানায় এখনো কেউ অভিযোগ দায়ের করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs